[আপডেট জুলাই, ২০১৭] বোনাস ২৫ ডলার সহ পেওনিয়ার মাস্টারকার্ড পাওয়ার সম্পূর্ণ নিয়ম

পেওনিয়ার কী


পেওনিয়ার হচ্ছে একটি বিশ্বস্ত ও বহুল জনপ্রিয় অনলাইন মানি ট্রান্সফার সিস্টেম। শুধু এটুকু বললেই “পেওনিয়ার কী” এর উত্তর শেষ হয়ে যায় না। বরং এক কথায় বললে বলা যায় পেওনিয়ার হচ্ছে একটি অনলাইন পেমেন্ট সলুশন। যার মাধ্যমে আপনি পেমেন্ট প্রদান থেকে শুরু করে পেমেন্ট গ্রহণ সবই করতে পারবেন। পেওনিয়ার হচ্ছে আন্তর্জাতিক মাস্টারকার্ড কর্পোরেশনের একটি রেজিস্টার্ড সদস্য যারা বিশ্বের প্রায় সকল দেশে ফ্রি (প্রথম বছরের জন্য) মাস্টারকার্ড প্রদান করে। আর এখানে রেজিস্ট্রেশন করলে আপনি পাচ্ছেন Community Federal Savings Bank of America’র একটি অ্যাকাউন্ট। এছাড়াও পেতে পারেন একাধিক ভার্চুয়াল মাস্টারকার্ড সহ ইউরোপ ও আমেরিকার একাধিক ব্যাংক অ্যাকাউন্ট।

পেওনিয়ারের সুবিধা


০১। অ্যাকাউন্ট তৈরি করে পাবেন একটি ফ্রি আন্তর্জাতিক প্লাস্টিক মাস্টারকার্ড; যার মাধ্যমে মাস্টারকার্ড লোগো সম্বলিত বিশ্বের যে কোন এটিএম বুথ থেকে সেই দেশের মুদ্রায় অর্থ উত্তোলন করতে পারবেন। আর এই মাস্টারকার্ডে আপনার নাম লেখা থাকবে।
০২। অনলাইনের প্রায় সকল ক্ষেত্রে পেমেন্ট করতে পারবেন।
০৩। পেপ্যাল ভেরিফাই করতে পারবেন।
০৪। গুগল, ফেসবুক সহ অন্যান্য সাইটে বিজ্ঞাপণ দিতে পারবেন।
০৫। ফ্রিল্যান্সিং সাইটগুলো থেকে পেমেন্ট নিতে পারবেন।
০৬। প্রথমবার একবারে বা ভিন্ন ভিন্ন অ্যামাউন্টে মোট ১০০ ডলার লোডে পাবেন ২৫ ডলার বোনাস।

পেওনিয়ার মাস্টারকার্ডের ফি


০১। মাস্টারকার্ডের জন্য আবেদন ও গ্রহণ : ফ্রি
০২। বাৎসরিক অ্যাকাউন্ট মেইনটেন্যান্স ফি : $29.95
০৩। কার্ড রিপ্লেসমেন্ট ফি : $12.95
০৪। এটিএম থেকে উত্তোলন : $3.15+ব্যাংক সারচার্জ (যদি ব্যাংকের কোন সারচার্জ থাকে)
০৫। এটিএম থেকে উত্তোলন বাতিল হলে : $1+ব্যাংক সারচার্জ (যদি ব্যাংকের কোন সারচার্জ থাকে)
০৬। এটিএম থেকে ব্যালেন্স চেক : $1+ব্যাংক সারচার্জ (যদি ব্যাংকের কোন সারচার্জ থাকে)
০৭। লোকাল ব্যাংকে মানি ট্রান্সফার : ২%+ব্যাংক চার্জ (যদি ব্যাংক কোন চার্জ নেয়)

পেওনিয়ারের ফি বিস্তারিত জানার জন্য আপনার পেওনিয়ার অ্যাকাউন্টের Help>Pricing & Fees অপশন দেখুন।

পেওনিয়ার অ্যাকাউন্ট করতে কী কী লাগবে


০১। একটি ইমেইল অ্যাড্রেস
০২। একটি ফোন/মোবাইল নাম্বার
০৩। জাতীয় পরিচয়পত্র/ ্ড্রাইভিং লাইসেন্স/ পাসপোর্ট (যে কোন একটি হলেই হবে)
০৪। একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট (অবশ্যই পরিচয় পত্রের নামের সাথে মিল থাকতে হবে)

কীভাবে পেওনিয়ার অ্যাকাউন্ট করবেন


২৫ ডলার বোনাস পেতে আপনাকে কারো রেফারেন্সে অ্যাকাউন্ট করতে হতে পারে। অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য Payoneer.com (আমার রেফারেন্স দেওয়া আছে) প্রবেশ করুন। ‍Sign & Earn 25* লেখা অংশে ক্লিক করুন। পরবর্তী পাতায় নিচের মতো দেখতে পাবেন।


ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট হলে Individual নির্বাচন করুন (ডিফল্ট ভাবে নির্বাচন করা থাকবে) আর যদি অ্যাকাউন্টটি যদি কোন কোম্পানির হয় সেক্ষেত্রে Company নির্বাচন করুন। আমি রিকমেন্ড করবো Individual নির্বাচন করতে। আপনার তথ্য দিয়ে প্রতিটি ঘর পূরণ করুন।

যদি আপনার নাম Md. Firstname Middlename Lastneme হয় সেক্ষেত্রে প্রথম ঘরে Md Firstname Middlename লিখুন এবং দ্বিতীয় ঘরে শুধু Lastname লিখুন। মনে রাখবেন Md. থাকলেও শুধু Md লিখতে হবে। পেওনিয়ার .(ডট) সাপোর্ট করে না।

সকল তথ্য পূরণ করা হলে NEXT বাটনে ক্লিক করুন।


এই অংশে আপনার ঠিকানা দিতে হবে। Country হিসেবে Bangladesh নির্বাচন করা থাকবে। যদি না থাকে তবে লিস্ট থেকে নির্বাচন করে দিন। অথবা অন্য কোন দেশে থেকে অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চাইলে সেই দেশ নির্বাচন করুন। আপনার বাসার পূর্ণ ঠিকানা দিন। যেমন: আপনার বাসার নাম্বার (ফ্ল্যাট নাম্বার), রোড নাম্বার, এলাকা, থানা। City’র নাম লিখুন। যেমন: Dhaka. আপনার এলাকার পোস্টকোড দিন। মোবাইল বা ্ল্যান্ডলাইন দিতে হবে। সেক্ষেত্রে +880 বাদ দিয়ে বাকি অংশ লিখতে হবে। যেমন: 1xxxxxxxxx (মোবাইল হলে) বা 2xxxxxxx (ল্যান্ডলাইন হলে)। এরপর NEXT ক্লিক করুন।


এখানে প্রথম ঘরে Username হিসেবে আপনার দেওয়া ইমেইল অ্যাড্রেস থাকবে। আপনি আপনার অ্যাকাউন্টে প্রবেশের পাসওয়ার্ড দুইবার দিবেন (ইমেইলের পাসওয়ার্ড নয়; পেওনিয়ারে প্রবেশের জন্য যে পাসওয়ার্ড দিতে চান)। একটি Security Question নির্বাচন করে পরের ঘরে তার উত্তর লিখুন (ইংরেজি অক্ষরে)। এবং NEXT ক্লিক করুন।


এই অংশে আপনাকে আপনার লোকাল ব্যাংক অ্যাকাউন্ট তথ্য দিতে হবে। আপনার ব্যাংক অ্যকাউন্ট তথ্য দিয়ে SUBMIT করুন। আর সাবমিট করতে হলে অবশ্যই আপনাকে তাদের সবকিছুতে সম্মতি প্রকাশ করতে হবে।

সবকিছু সফলভাবে হলে পেওনিয়ার থেকে আপনার ইমেইলে একটি ভেরিফিকেশ লিংক যাবে। ইমেইল ভেরিফাই করুন এবং আপনার পেওনিয়ার অ্যাকাউন্টে প্রবেশ করুন। আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র / ড্রাইভিং লাইসেন্স / পাসপোর্ট সাবমিট করুন (এখনই সাবমিট করা লাগতে পারে)। ওরা গ্রহণ করলে একটি কনফার্মেশন মেইল পাঠাবে এবং কার্ড পাঠানোর তথ্য থাকবে। কার্ড পেতে ৫-২৮ দিন সময় লাগতে পারে।


আমার কিছু পরামর্শ


পেওনিয়ার এক ব্যক্তির নামে একাধিক অ্যাকাউন্ট সাপোর্ট করে না। কার্ড পাঠানোর মেইল পাওয়ার পরেই আপনার এলাকার ডাক পিয়নের সাথে যোগাযোগ করে রাখুন। প্রয়োজনে ফোন নাম্বার নিন এবং খোঁজ খবর রাখুন। যদি কোন কারণে নির্ধারিত সময়ে কার্ড না পেয়ে থাকেন তবে পেওনিয়ার সাপোর্টে যোগাযোগ করুন এবং কার্ডটি বাতিল করে নতুন কার্ড দিতে বলূন। পেওনিয়ার প্রথমবার কোন কারণে কার্ড না পেলে দ্বিতীয় একটি কার্ড ইস্যু করে এবং প্রথম কার্ডটি বাতিল করে দেয়। এক্ষেত্রে দ্বিতীয় কার্ড ইস্যুর জন্য কোন বাড়তি চার্জ দিতে হবে না। তবে মনে রাখবেন, দ্বিতীয়বার কার্ড না পেলে ওরা আর কোন কার্ড ইস্যু করবে না।

কার্ড অ্যাক্টিভেশন


কার্ড হাতে পাওয়ার পরে myaccount.payoneer.com ঠিকানায় যেয়ে আপনি যে ইমেইল অ্যাড্রেস ও পাসওয়ার্ড দিয়ে পেওনিয়ারে রেজিস্ট্রেশন করেছিলেন তা দিয়ে প্রবেশ করুন। Card Activation লেখা থাকবে সেখানে ক্লিক করে আপনার কার্ডের তথ্য দিয়ে কার্ড অ্যাকটিভ করুন। এবং অন্য কারো পেওনিয়ার অ্যাকাউন্ট বা অন্য কোন মাধ্যমে ডলার লোড করে কার্ড ব্যবহার শুরু করুন।

এই অংশটি স্ক্রিনশটের মাধ্যমে দেখাতে পারলাম না। কারণ আমার অ্যাকাউন্ট অনেক আগেই করা ছিলো। যদি কোন সমস্যা মনে করেন তবে মন্তব্য লিখুন। যদি পারি উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো।